কামিনী রায় এর কবিতা সংগ্রহ

কামিনী রায়ের জন্ম ঝালকাঠি থানার বাসন্ডা গ্রামে।জন্ম ১২ অক্টোবর ৬৪। মৃত্যু ২৭ সেপ্টেম্বর ১৯৩৩।

কামিনী রায়ের পিতা চণ্ডীচরণ সেন ব্রাহ্ম ধর্মাবলম্বী এবং সাহিত্যিক ও সাব-জজ ছিলেন। স্বামী স্ট্যাটিউটরি সিভিলিয়ান কেদারনাথ রায়। বেথুন কলেজ থেকে সংস্কৃতে অনার্স-সহ বি.এ. পাশ করে (১৮৮৬) উক্ত কলেজেই শিক্ষয়িত্রীর পদ পান। তিনিই ভারতে প্রথম মহিলা অনার্স গ্র্যাজুয়েট। পনেরো বছর বয়সে লেখা ‘আলো ও ছায়া’ কাব্যগ্রন্থটি হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূমিকা-সমেত প্রকাশিত (১৮৮৯) হবার পর থেকেই কবিখ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে। ১৮৯৪ সালে তার বিয়ে হয় স্ট্যাটিউটরি সিভিলিয়ান কেদারনাথ রায়ের সাথে। ১৯০১ সালে তাঁর স্বামীর মৃত্যু হয়। ১৯২২-২৩ পর্যন্ত তিনি নারী শ্রমিক তদন্ত কমিশনের অন্যতম সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৩২-৩৩ সালে তিনি বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদের সহ-সভানেত্রীর প্রদত্ত দায়িত্ব পালন করেন।

অমিত্রাক্ষর ছন্দে রচিত ‘মহাশ্বেতা’ ও ‘পুন্ডরীক’ তাঁর দু-টি প্রসিদ্ধ দীর্ঘ কবিতা। অন্যান্য উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ: আলো ও ছায়া (১৮৮৯), নির্মাল্য (১৮৯১), প্যেরানিকী (১৮৯৭), গুঞ্জন (১৯০৫) মাল্য ও নির্মাল্য (১৯১৩), সনেট সংগ্রহ, অশোক-সঙ্গীত (১৯১৪), নাট্য কাব্য অম্বা (১৯১৫), ঠাকুরমার চিঠি (১৯২৪), দ্বীপ ও ধূপ (১৯২৯) ও জীবন পথে (১৯৩০)। কাব্য সাধনায় তাঁর কৃতিত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯২৯ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে জগত্তারিনী স্বর্ণপদকে সম্মানিত করেন। তাঁর ভগিনী যামিনী সেন লেডি ডাক্তার হিসাবে খ্যাতিলাভ করেছিলেন।

Share This Article
Jobs By Category
Recent Jobs
Question Bank